ঢাকা,বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

আলীকদম সংরক্ষিত বন থেকে উদ্ধার বিরল প্রজাতির বনছাগলটি এখন সাফারী পার্কে

আলীকদম (বান্দরবান) প্রতিনিধি :: লামা বন বিভাগের মাতামুহুরী সংরক্ষিত বন থেকে উদ্ধার হওয়া বন ছাগল ছানাটি (সরা) ডুলাহাজারা সাফারী পার্ক হস্তার করা হয়েছে। বনকর্মীদের মাধ্যমে উদ্ধার হওয়া এ বনছাগলটি ‘আন্তর্জাতিক প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সংঘ (আইইউসিএন)’-এ বিশ্ব বিপন্ন প্রজাতির প্রাণী হিসেবে তালিকাভূক্ত। প্রকৃতি বিশেষজ্ঞ মত, এ প্রজাতির বনছাগল বা সরা বাংলাদেশে বিরল।
লামা বন বিভাগর বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এস.এম কায়চার চকরিয়া নিউজকে জানান, বাংলাদেশে দুর্লভ প্রজাতির এ বনছাগল ছানাটি আলীকদম উপজেলার কুরুকপাতা ইউনিয়নের ইয়াংনং মুরুং পাড়ায় পাওয়া গেছে। সেখানকার মুরুং বাসিন্দারা দুর্গর্ম বন থেকে ছাগল ছানাটি গত সপ্তায় আটক করে। আমরা খবর পেয়ে বনছাগল ছানাটি উদ্ধার করি।
তিনি জানান, উদ্ধার হওয়া বন ছাগল ছানার ইংরজি নাম সরা। এটি দেশের বিরল প্রজাতির একটি বন্যপ্রাণী। বাসস্থান ক্ষতি এবং শিকারের জন্য এ প্রজাতির বনছাগলের অস্তিত্ব পুরা পৃথিবীতে হুমকির সম্মুখীন। যার কারণে ‘আইইউসিএন’ তালিকায় বিপন্ন প্রজাতির প্রাণী হিসেবে এটি অন্তভুক্ত।
প্রকৃতিপ্রেমি ও ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক অপু নজরুল জানান, ‘বনছাগল বা সরা সন্ধ্যা ও খুব ভোরে খেতে বের হয়। সারাদিন চিপায়-চাপায় বা গর্তে বসে জাবর কাটে। ঝাপ-ঝাড় কিংবা পাথুরের ঢালে পালিয়ে থাকে বলে এদের দেখা পাওয়া মুশকিল। এরা এক ধরণের গন্ধগ্ররি সাহায্য গন্ধ ছড়িয়ে টরিটারি মার্ক করে রাখে। বনছাগল বাংলাদশে অত্যন্ত বিপুন্ন ও দূর্লভ প্রাণী। তার মতে, প্রকৃতিতে মুক্ত বনছাগলের ছবি কেউ বাংলাদশে তুলতে পারেনি।
মাতামুহুরী রেঞ্জ কর্মকর্তা জহির উদ্দিন মিনার চৌধুরী চকরিয়া নিউজকে জানান, উদ্ধার হওয়া বনছাগলটি গতকাল আনুষ্টানিকভাবে ডুলাহাজারা সাফারী পার্ক স্থানান্তর করা হয়ছে। সাফারী পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাজাহারুল ইসলাম চৌধুরী ও ডাক্তার মাহফুজুর রহমানের তত্বাবধানে বন ছাগল ছানাটির চিকিৎসা চলছে।

পাঠকের মতামত: