ঢাকা,শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

বেআইনি ইটভাটা বন্ধে প্রশাসন অন্ধ

আনোয়ারা প্রতিনিধি :: চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বটতলী ইউনিয়নের পরীরবিল এলাকায় মোহছেন আউলিয়া ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং (এমবিএম) নামের একটি ইটভাটা ৪ বছর ধরেই অনুমোদন ছাড়াই আবাদি জমি, লোকালয়ে পাশে তৈরি করছে ইট। নেই কোনো পরিবেশ অধিদপ্তরের অবস্থান ও পরিবেশগত ছাড়পত্র।

ইটভাটার ধোঁয়ায় প্রতিনিয়ত আশপাশের বাড়ির গাছের ফল নষ্ট হচ্ছে। মরিচা ধরে নষ্ট হচ্ছে টিনের চাল। এছাড়া আবাদি জমির ফসলও ভালো হচ্ছে না বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। প্রশাসনের নাকের ডগায় ইটভাটাটি চললেও বন্ধের নেই কোনো উদ্যোগ উপজেলা প্রশাসনের।

ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ অনুযায়ী কৃষি জমিতে ইটভাটা স্থাপন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এছাড়া আবাসিক এলাকা থেকে এক কিলোমিটার এবং ইউনিয়ন বা গ্রামীণ সড়ক থেকে অন্তত আধা কিলোমিটারের মধ্যে ইটভাটা স্থাপন করা যাবে না। কিন্তু আইনের তোয়াক্কা না করে প্রশাসনের নাকের টগায় বটতলী এলাকার প্রভাবশালী সামশুল আলম ও সাতকানিয়া উপজেলার আবু তাহের এ ভাটাটি চালাচ্ছেন। ২০১৬ সালে প্রশাসন অভিযান চালিয়ে জরিমানা করলেও ওই ভাটায় এখনো ইট তৈরি হচ্ছে। শুধু তাই নয়, এই ইটভাটার মালিকের বিরুদ্ধে স্থানীয় কৃষকদের কয়েক একর জমি জালিয়াতির মাধ্যমে দখলে নেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, এই ইটভাটার আশপাশে কমপক্ষে শতাধিক পরিবারের বসবাস। চারপাশে রয়েছে তিন ফসলি জমি। ভাটার পাশের জমিগুলোতে কৃষকরা কাটছে ধান। এছাড়াও রয়েছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) সড়ক। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও শহরমুখী হাজারও মানুষের চলাচলা।

মোহছেন আউলিয়া ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং (এমবিএম) ভাটার ব্যবস্থাপক আবু তাহের বলেন, ‘অনুমোদনের জন্য আবেদন করেছি। কিন্তু এখনো অনুমোদন দেয়নি।

আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ওসি) শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন, ‘ইটভাটা দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পাঠকের মতামত: