Home » কক্সবাজার » নির্বাচনে নৌকার বিরোধীদের আওয়ামী লীগে স্থান হবে না- এমপি কমল

নির্বাচনে নৌকার বিরোধীদের আওয়ামী লীগে স্থান হবে না- এমপি কমল

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

রামু প্রতিনিধি :: কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন, আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে নির্বাচন আসলেই যারা বঙ্গবন্ধুর নৌকা ও শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীরা বিরোধিতা করে তাদের আওয়ামীলীগ করার কোন অধিকার নেই। শেখ হাসিনা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ ঘোষনা দিয়েছেন উপজেলা, ইউনিয়ন এমনকি ওয়ার্ড পর্যায়ে যারা নৌকার বিরোধিতা করেছে তারা আওয়ামীলীগের দায়িত্বে থাকতে পারবে না। আমরা নৌকা মার্কার আওয়ামীলীগের নেতাদের নিয়েই রামু উপজেলা আওয়ামীলীগকে পূর্ণগঠন করবো। এখানে আনারস মার্কা আওয়ামীলীগের স্থান হবে না। শেখ হাসিনা পরপর তিনবার সংসদ নির্বাচনে আমাকে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী করেছিলেন। কিন্তু প্রত্যেকবারই রামু উপজেলা আওয়ামীলীগের নামধারি নেতারা নৌকা প্রতীকের বিরোধিতা করেছেন। ইয়াবা ব্যবসায়ি, বিতর্কিত ব্যক্তি আর বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের দিয়ে আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করা দলের সাথে তামাশা করার শামিল। বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যারা নৌকা প্রতীকের চরম বিরোধীতা করেছে তাদেরকে আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা কমিটিতে অর্ন্তভূক্ত করার পাঁয়তারা চলছে। সংসদ নির্বাচন ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকার বিরোধীতাকারিদের আওয়ামীলীগে কখনো স্থান হবে না। তাদের সবক্ষেত্রে প্রত্যাখান করা হবে।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ রামু উপজেলা শাখা আয়োজিত বিশাল প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি কমল এসব কথা বলেন।

বৃহষ্পতিবার (৩১ অক্টোবর) বিকালে রামু স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমদ মাস্টার।

সভায় তৃণমূল আওয়ামীলীগ নেতারা বলেন, যারা জীবনে নৌকা প্রতীকে ভোট দেয়নি তারাই এখন আওয়ামীলীগে নের্তৃত্ব দিয়ে নৌকা প্রতীকের বিরোধীতাকারি ও বিএনপি-জামায়াত কর্মীদের ডেকে বর্ধিত সভার নামে ইচ্ছে মত কমিটি করে যাচ্ছে। উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নিজেও কোনদিন নৌকা প্রতীকে ভোট দেননি। উল্টো সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনের মত গুরুত্বপূর্ণ সব নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রকাশ্য বিরোধীতা করেছেন। তারা এখন প্রকৃত ও ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে নিজেদের সুবিধাভোগী লোকজন দিয়ে বিতর্কিত কমিটি গঠন শুরু করেছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতারা এসব বিতর্কিত সম্মেলন আহবানকারি ও কমিটি গঠনের বিরুদ্ধে স্বোচ্ছার হয়েছে।

খুনিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের ২ বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা সাংবাদিক আবদুল মাবুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জাফর আলম চৌধুরী, রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলম, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল গনি সওদাগর, ফতেখাঁরকুল ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, রাজারকুল ইউপি চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুচ ভূট্টো, কাউয়ারখোপ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, রশিদনগর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি শাহ আলম, গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, গর্জনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ফরিদ আহমদ চৌধুরী ও আওয়ামীলীগ নেতা হাবিব উল্লাহ চৌধুরী, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি তৈয়ব উদ্দিন সিরাজ, কাউয়ারখোপ আওয়ামীলীগ নেতা ওসমান সরওয়ার মামুন, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জয়নাল আবেদিন ম্বেম্বার, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ প্রমূখ।

আওয়ামীলীগ নেতা হাজ¦ী নুরুল হকের কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া প্রতিনিধি সভায় উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আলী হোসেন, প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কবির মেম্বার, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো ও নুরুল আমিন কোম্পানী, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়–য়া, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়–য়া আপ্পু, গর্জনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব সিকদার, সহ সভাপতি ইয়াহিয়া চৌধুরী, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ আলম সুলতান মেম্বার, আবদুল গফুর কোম্পানী, কবির আহমদ, ছৈয়দ আহমদ, রশিদনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা শেফায়েল উদ্দিন চৌধুরী, আনু মিয়া সওদাগর, কচ্ছপিয়ার জাকের আহমদ মেম্বার, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার নুরুল ইসলাম, আবদুস ছালাম আজাদ ও মহলজ্জামা, জেলা তাঁতীলীগের সহ সভাপতি আনছারুল হক ভূট্টো, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ মো. আবদু শুক্কুর, যুবলীগ নেতা নবীউল হক আরকান ও উত্তম মহাজন, সাংসদ কমলের একান্ত সচিব ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মিজানুর রহমান, উপজেলা যুবলীগে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সম্পাদক আবু বক্কর ছিদ্দিক, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ আহবায়ক নজরুল ইসলাম, সদস্য সচিব এম সেলিম, উপজেলা সৈনিকলীগ সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হক বাবু, উপজেলা তাঁতীলীগ সভাপতি নুরুল আলম জিকু, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, উপজেলা শ্রমিকলীগ আহবায়ক শফিউল আলম কাজল, রশিদনগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মিজানুর রহমান, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আজিজুল হক আজিজ, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি একরামুল হাসান ইয়াছিন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও প্রতিনিধি সভায় রামু উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন।

সভায় রামু উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আগামী ৮ নভেম্বর গর্জনিয়া, ৯ নভেম্বর জোয়ারিয়ানালা, ১০ নভেম্বর রাজারকুল, ১১ নভেম্বর খুনিয়াপালং, ১২ নভেম্বর কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলন আয়োজনের তারিখ ঘোষনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বান্দরবানে বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতে বন্যহাতি হত্যা

It's only fair to share...000বান্দরবান প্রতিনিধি :: বান্দরবানের লামায় বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতে একটি বন্যহাতিকে হত্যা ...

error: Content is protected !!