Home » পার্বত্য জেলা » খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচনে যাবেনা বিএনপি  -মিসেস মাম্যাচিং

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচনে যাবেনা বিএনপি  -মিসেস মাম্যাচিং

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি ::

দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচনে যাবে না বান্দরবান জেলা বিএনপি। শীঘ্রই সকল নেতাকর্মী ও দেশবাসীকে সাথে নিয়ে দেশনেত্রীর মুক্তির দাবীতে রাজপথে আন্দোলনে নামা হবে। শুক্রবার (২৪ আগস্ট) বিকেলে বান্দরবানের লামা প্রেস ক্লাবের হলরুমে কর্মরত সকল সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় কালে এসব কথা বলেন, বান্দরবান জেলা বিএনপি’র সভাপতি মিসেস মাম্যাচিং।

ঈদ পরবর্তী লামা উপজেলার নেতাকর্মীদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও ফাঁসিয়াখালী, লামা ও রুপসীপাড়া ইউনিয়নে নেতাকর্মীদের সাথে পৃথক মতবিনিময় সভা করেন বান্দরবান জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দরা। দলীয় এই সফরের নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর বান্দরবান জেলার সভাপতি মিসেস মাম্যাচিং।

এসময় তার সফরসঙ্গী ছিলেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র (বান্দরবান) মো. জাবেদ রেজা, সাংগঠনিক সম্পাদক এম. জসিম উদ্দিন, মংশৈ ¤্রাই মার্মা, সহ-সভাপতি ফরিদ উদ্দিন, যুগ্ন সাঃ সম্পাদক আবিদুর রহমান, বান্দরবান পৌর বিএনপি সভাপতি নুরুল ইসলাম, জেলা যুবদল সভাপতি, ছাত্রদল সভাপতি, স্বেচ্ছাসেবকদল সভাপতি, লামা পৌর বিএনপি সভাপতি আব্দুর রব, উপজেলা বিএনপির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক (কাউন্সিলর) মো. সাইফুদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন সহ প্রমূখ।

বান্দরবান থেকে আগামী সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী কে হচ্ছেন ? মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মিসেস মাম্যাচিং বলেন, জেলা বিএনপির মধ্যে দূরত্ব আছে ঠিক, এইটা প্রতিযোগীতা কিন্তু প্রতিহিংসা নয়। বান্দরবানের ৯৫ শতাংশ বিএনপির নেতা কর্মীরা আমাদের সাথে রয়েছে। বান্দরবানে গত কিছুদিন পূর্বে অনুষ্ঠিত কর্মী সমাবেশে সেটা আমরা প্রমাণ করেছি। সেই সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন, বিএনপির সিনিয়র নেতা মির নাসির।

এসময় তিনি অপর এক প্রশ্নের জবাবে আরো বলেন, খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে আমরা নির্বাচনে যাবনা। অসত্য আর মিথ্যা মামলা দিয়ে সরকার দেশনেত্রীকে জেলে রাখতে পারবেনা। আমরা তার মুক্তির দাবী করছি। আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন, নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ও সেনাবাহিনী মোতায়েন ছাড়া নির্বাচনে যাবেনা বিএনপি। বিশেষ করে আইবিএম পদ্ধতিতে ভোট হলে আমরা মেনে নেবনা। নির্বাচনের পূর্বে আমাদের সকল নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে করা সরকারের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। তিনি কোটা আন্দোলনে আটক ছাত্রদের মুক্তি দিতে সরকারকে অনুরোধ করেন। মাম্যাচিং বলেন, আমিও জার্নালিজমের ছাত্র ছিলাম। এই পেশা আমার খুব প্রিয়। গণমাধ্যমের সত্য লেখনির মধ্য দিয়ে দেশের মানুষ গণতান্ত্রিক মুক্তি পাবে। আমরা আপনাদের (সাংবাদিক) কাছে বস্তুনিস্ট সংবাদ আশা করছি।

‘নিরাপদ সড়ক চাই দাবীতে ছাত্রদের করা আন্দোলনে রাজপথে নানা অরাজকতার পিছনে বিএনপি ছিল’ সরকারের এই বক্তব্যের বিষয়ে সাংবাদিকের করা প্রশ্নের জবাবে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. জাবেদ রেজা বলেন, নেপথ্যে নয় বিএনপি সামনে থেকে ছাত্র আন্দোলনে সমর্থন দিয়েছিল। কারণ তাদের দাবী গুলো যুক্তি ছিল। আর অরাজকতা বিএনপি করেনি, আওয়ামীলীগ ঘটনা ঘটিয়ে বিএনপির উপর দোষ চাপাতে চাচ্ছে। দেশের মানুষ লুঙ্গি পরা পুলিশও দেখেছে ! সরকার নিরপেক্ষ ভোট দিয়ে দেখুক, জনগণ কাকে পছন্দ করে ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সরকারের হুমকিতে দেশ ছাড়েন এস কে সিনহা : বিবিসির খবর (ভিডিও)

It's only fair to share...000পিবিডি : বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা একটি আত্মজীবনীমূলক ...