Home » কক্সবাজার » রবির গ্রাহক ভোগান্তি চরম পর্যায়ে

রবির গ্রাহক ভোগান্তি চরম পর্যায়ে

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

05-8-300x188বিশেষ প্রতিবেদক ::
বাংলাদেশের ৩য় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর কোম্পানী রবির গ্রাহকরা ভোগান্তির চরম পর্যায়ে দিনাতিপাত করছে। নেটওয়ার্ক বিপর্যয়, নিবন্ধিত সিম বিনা কারণে স্থগিত, থ্রী-জির নামে ইন্টারনেটের মন্থর গতি সহ নানামুখী প্রতারণা অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে নেটওয়ার্ক থাকার পরও কল না যাওয়ায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে রবির সাধারণ গ্রাহকদের। অন্যদিকে ইন্টানেটের মন্থর গতির কারণে অফিসিয়াল কাজকর্ম করাও দুরূহ ব্যাপার হয়ে পড়েছে। যেহেতু রবি জোন হিসেবে উখিয়ার প্রায়ই মানুষ প্রথম থেকে রবি নাম্বার ব্যবহার করলেও সম্প্রতি রবির ভোগান্তিতে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে সাধারণ গ্রাহক।

পলাশ বড়–য়া নামের এক ব্যক্তির সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমার ব্যক্তিগত নামে নিবন্ধিত দীর্ঘদিনের পুরোনো নাম্বারটি ০১৮১৮৫৬৪৮১৫ বিনা কারণে সাময়িক স্থগিত করলে সিমটি চালু করার জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে কোটবাজার কাষ্টমার কেয়ার এবং পরবর্তীতে কক্সবাজার কাষ্টমার কেয়ারে গিয়ে অভিযোগ করে আসি। ৭২ ঘন্টার মধ্যে ভেরিফাই করে চালু করার কথা থাকলেও এখনো পর্যন্ত চালু হয়নি। ফলে নতুন বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে পুনরায় ০১৮১৯৮৭৮৬১৭ নাম্বারের সিমটি ক্রয় করি। ৮-১০দিন ব্যবহারের পর এই সিমটিও স্থগিত করা হলে সর্বশেষ ১৭ ফেব্রুয়ারী পুন: অভিযোগ করি যার ফরম নং- ১০৭৬৪৪৭২।
কোটবাজার কাষ্টমার কেয়ার এ দায়িত্বরত কর্মকর্তা মাহফুজ বলেন, সিম স্থগিত করার ব্যাপারে তাদের কোন হস্তক্ষেপ নেই। বিষয়টি বিটিআরসি নিয়ন্ত্রণ করছে বলে তিনি জানান।

রবি কর্মকান্ড নিয়ে পলাশ বড়–য়া আরো অভিযোগ করে বলেন, আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামীয় ০১৮২৮২২১৭০২ নাম্বারটি দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসলেও আমাকে জ্ঞাত না করে রবি কোম্পানীর এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজসে আমার ব্যবহৃত নাম্বারটি অন্য আরেকজনের নিকট হস্তান্তর করে। ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে বিপত্তি। ওই নাম্বারে ফোন করে কেউ আমাকে খোঁজ করলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ সহ অশালীন আচরণ করছে বলে এমন অভিযোগ ও পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মৌখিক অভিযোগ করা হলে কোটবাজারস্থ রবি অফিসের কর্মকর্তারা সিমটি পুনরায় আমাকে প্রদানের আশ্বস্থ করলেও এখনো পর্যন্ত তা করেনি ফলে সমস্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তাছাড়া ৩টি নাম্বারেই বিকাশ হিসাব চালু আছে সেই সুবাধে একাউন্টে সঞ্চিত টাকাও আছে। তিনি রবি কর্মকর্তাদের অবৈধ ভাবে হস্তান্তরকৃত ০১৮২৮২২১৭০২ নাম্বারে কোন ধরণের লেনদেন কিংবা ফোন করে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানান। এ ব্যাপারে তিনি রবি কোম্পানীর নামে মামলার রুজু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান।

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্র আবরার শাওন রোস্তম বলেন, গত দুইদিন ধরে রবি গ্রাহকরা চরম দুর্ভোগে আছি। নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করতে না পারায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ইউটিউব এবং অনলাইন সংবাদপত্র পড়া সহ ভার্সিটি সংক্রান্ত তথ্য থেকে পেতে নানামুখী সমস্যায় দিনাতিপাত করছি।

স্থানীয় এক ব্যক্তি জানান, রবির নেটওয়ার্ক বিপর্যয়ের ফলে অফিসের কোন কাজকর্ম করাই সম্ভব হচ্ছে না। ফলে এখন অন্য অপারেটর ব্যবহার করার চিন্তা করতে হচ্ছে।

নেটওয়ার্ক বিপর্যয়ের ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে রবির কাস্টমার কেয়ার ও উখিয়ার জোনাল অফিসের কর্মকর্তারা কোন প্রকার সদুত্তর দিতে পারে নি। বরং রবির কাস্টমার কেয়ারে লাইনে থাকা কথা বলে টাকা গুলো কেটে নেওয়া হচ্ছে বলে ও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবির এই চরম নেটওয়ার্ক বিপর্যয় অব্যাহত থাকে অতিশীঘ্রই গ্রাহক হারাতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেন খোদ উখিয়ার রবি অফিসের কর্মকর্তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

প্রবারণা পূর্ণিমাকে ঘিরে লামায় ব্যাপক প্রস্তুতি

It's only fair to share...000মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি ::   মঙ্গলবার থেকে আতশবাজি, বর্ণিল ...