Home » কক্সবাজার » ঈদগাঁওয়ে বিশ্বকাপ ফুটবলের জার্সি পতাকা বিক্রির ধুম!

ঈদগাঁওয়ে বিশ্বকাপ ফুটবলের জার্সি পতাকা বিক্রির ধুম!

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও, কক্সবাজার ::

বিশ্বকাপ ফুটবল দোরগোড়ায়। ফুটবলপ্রেমীরাও নিচ্ছেন বিশেষ প্রস্তুতি। জার্সি, প্রিয় দেশগুলোর পতাকা সংগ্রহ করছেন ভক্তরা। আর এতে জমে উঠেছে কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওয়ে মৌসুমি ব্যবসার রমরমা বাজার। ফুটপাত থেকে শুরু করে ছোট-বড় সব বিপণি বিতান ছেয়ে গেছে প্রিয় দলের জার্সিতে। সঙ্গে রয়েছে পতাকা ও হাতের ব্যান্ডসহ বাহারি সব পণ্য। ইতিমধ্যে ক্রেতাদের সরব উপস্থিতিতে জমে উঠেছে বেচাকেনা।

খোঁজ খবর জানা গেছে, বিশ্বকাপ ফুটবলকে সামনে রেখে ঈদগাঁও বাজারের ক্রীড়া সামগ্রীর দোকানে প্রায় লাখ টাকার জার্সিসহ বিভিন্ন পণ্য বেচাকেনা হয়েছে। এসব দোকানিরা কয়েক লাখ টাকার ফুটবল আয়োজনের নানা পণ্য স্থানীয় পর্যায়ে বিক্রি হবে বলে আশা করছেন।

ক্রীড়া সামগ্রীর ব্যবসায়ীরা জানায়, বিভিন্ন এলাকার ফুটবল প্রেমিরা জার্সি বেশি নিয়েছে। এখন প্রিয় দলের পতাকা ক্রেতারা বেশি নিচ্ছেন। এখন প্রতিদিন প্রায় ১শ থেকে ১৫০শ জার্সি বিক্রি হচ্ছে।

ক্রীড়া সামগ্রী বিক্রেতারা বলেন, ‘আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের জার্সি চাহিদা ক্রেতাদের আগ্রহের তুঙ্গে। জার্মানি, পর্তুগাল, ইতালি, স্পেনের জার্সির চাহিদাও মন্দ নয়। ক্রেতাদের চাহিদা মেটানোর মতো পর্যাপ্ত প্রস্তুুতিও নেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, চায়না থেকে আমদানিকৃত জার্সিগুলো সাধারণত ৫০০ থেকে ৮শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কোথাও আরও চড়া মূল্য রাখা হচ্ছে। তবে ফুটবলমোদীরা বেশি ভিড় করছেন ফুটপাতে পসরা সাজিয়ে বসা দোকানিদের কাছে। যেখানে ১০০ থেকে ৩শ টাকার মধ্যে মিলছে বিভিন্ন দেশি জার্সি। স্থানীয়ভাবে প্রস্তুতকৃত এসব জার্সিগুলোই আমদানিকৃত দাবি করে ক্রেতাদের ধোকা দেয়া হচ্ছে। এতে করে অনেক ক্রেতাই বিভ্রান্ত হচ্ছেন।

ঈদগাঁও নিউ মার্কেটের জার্সি ব্যবসায়ীরা বলেন, অন্যান্য বিশ্বকাপের তুলনায় এবার জার্সি বিক্রি অনেক বেড়েছে। আমরা জার্সি অর্ডার দিয়েও পাচ্ছি না। চীন থেকে যেসব জার্সি আসে সেগুলো বেশি দামে কিনে নিয়ে যাচ্ছে অন্যান্য দেশ। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই তারা নারায়ণগঞ্জ ও বঙ্গবাজার থেকে জার্সি এনে ক্রেতাদের সরবরাহ করছেন।

এখানে হাফ হাতা জার্সি ৫শ ও ফুলহাতা জার্সি ৯শ টাকায় বিক্রি করছেন। তবে স্থানীয় কাপড়ে তৈরি জার্সিগুলো পাওয়া যাচ্ছে ৩০০ থেকে ৪শ টাকার মধ্যেই। শুধু জার্সিই নয়, বিক্রি হচ্ছে নানান দেশের পতাকাও। এসব পতাকা তৈরির জন্য কাজের ফুরসত নেই পোশাকের কারিগর দর্জির দোকানগুলোতে।

ঈদগাঁও বাজারের কমবেশি সব দর্জি পতাকা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। জার্সি ও পতাকার হঠাৎ এ চাহিদায় মৌসুমি ব্যবসায়ীরা হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ টাকা।

পতাকা বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ১শ টাকা থেকে ৫শ’ টাকা পর্যন্ত দামের বিভিন্ন দেশের পতাকা বিক্রি হচ্ছে। বিভিন্ন ফুটবল খেলুড়ে দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে ফুটবলের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার পতাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

‘এ সপ্তাহেই খালেদার জামিন’ -মওদুদ

It's only fair to share...000ডেস্ক রিপোর্ট :: এ সপ্তাহেই জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা ...

error: Content is protected !!