Home » জাতীয় » বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও চীন সীমান্ত সংলগ্ন রাজ্যগুলোতে যোগাযোগ বাড়াতে চায় ভারতীয় রেলওয়ে

বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও চীন সীমান্ত সংলগ্ন রাজ্যগুলোতে যোগাযোগ বাড়াতে চায় ভারতীয় রেলওয়ে

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক ::
উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পাঁচটি রাজ্যের রাজধানী এবং চীন, মিয়ানমার এবং বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন এলাকাগুলোর সাথে দেশের বাকি এলাকাগুলোর রেল সংযোগ স্থাপনের জন্য ৪০ হাজার কোটি রুপির বেশ কয়েকটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে ভারতীয় রেলওয়ে।

আগামী দুই বছরের মধ্যে মনিপুর, মিজোরাম, মেঘালয়, সিকিম এবং নাগাল্যান্ডের রাজধানীর সাথে রেল সংযোগ স্থাপন করতে চায় জাতীয় ট্রান্সপোর্টার। এই প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে ১৫০০ কিলোমিটারের বেশি রেললাইন স্থাপন এবং বেশ কিছু চ্যালেঞ্জিং ইঞ্জিনিয়ারিং প্রকল্প যেমন ভারতের দীর্ঘতম ডাবল ডেকার রেল ও রোড ব্রিজ নির্মাণ, দেশের অন্যতম দীর্ঘতম টানেল নির্মাণ এবং বিশ্বের উচ্চতম পিলার-ভিত্তিক রেল ব্রিজ নির্মাণ।

উত্তরপূর্ব এলাকার সীমান্ত এলাকার এই রেললাইনের মধ্য দিয়ে আগামীতে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের সাথে রেল সংযোগ স্থাপন করবে ভারত। রেলওয়ে বিভাগ অরুণাচল প্রদেশে ১৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনাও নিয়েছে যেটার মাধ্যমে চীন সীমান্তবর্তী তাওয়াং পর্যন্ত সংযোগ তৈরি হবে। মনিপুর থেকে মিয়ানমার সীমান্তবর্তী মোরেহ পর্যন্ত আরেকটি রেললাইনেরও পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশের সাথে ত্রিপুরার আগরতলার সংযোগের জন্য একটি রেললাইনের কাজ বর্তমানে চলমান রয়েছে।

নর্থইস্ট ফ্রন্টিয়ার রেলওয়েরে এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, “এই লাইনগুলো উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় সবগুলো রাজধানীর সাথে গোয়াহাটির বর্তমান নেটওয়ার্ককে যুক্ত করবে। এটা স্থাপিত হলে উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় এলাকাগুলো থেকে যাতায়াতের সময় উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমে যাবে”। তিনি বলেন, “এছাড়া কিছু কৌশলগত রেললাইনও রয়েছে, যেগুলো প্রতিরক্ষা বাহিনীকে সাহায্য করবে”।

আসাম, অরুণাচল প্রদেশ এবং ত্রিপুরার মধ্যে রেল যোগাযোগ রয়েছে। কিন্তু মেঘালয়, মনিপুর, মিজোরাম, সিকিম এবং নাগাল্যান্ডের রাজধানীর সাথে রেল যোগাযোগ নেই। এছাড়া আসাম সীমান্তের কাছে মনিপুরের জিরিবাম থেকে মনিপুরের ইমফালের মধ্যে ১১১ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণের পরিকল্পনাও নেয়া হয়েছে। কর্মকর্তারা জানান, “ইমফালের মধ্য দিয়ে আমরা মিয়ানমার সীমান্তের মোরেহের কাছে পৌঁছতে পারবো। এই রেললাইনের গ্রহণযোগ্যতা যাচাইয়ের কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে”।

রেল বোর্ডের মুখপাত্র ভেদ প্রকাশ বলেন, “একইসাথে, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড এবং সিকিমের রাজধানীর সাথে রেললাইন নির্মাণের কাজও চলছে। এই রেললাইনগুলো মূলত গোয়াহাটির সাথে যুক্ত হবে। ২০২০ সাল নাগাদ এগুলোর কাজ শেষ হবে”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নুরুল বশর চৌধুরী কক্সবাজার-২ আসনের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন

It's only fair to share...31500কক্সবাজার প্রতিনিধি :: কক্সবাজার জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি ও সাবেক ...