Home » কক্সবাজার » ঈদগাঁওতে গণসংবর্ধনার জবাবে কউক চেয়ারম্যান ফোরকান সবার সহযোগিতায় কক্সবাজারকে পরিকল্পিত ভাবে সাজানো সম্ভব

ঈদগাঁওতে গণসংবর্ধনার জবাবে কউক চেয়ারম্যান ফোরকান সবার সহযোগিতায় কক্সবাজারকে পরিকল্পিত ভাবে সাজানো সম্ভব

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

com

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ওয়াদা রক্ষাকারি উল্লেখ করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কউক) চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী যেটা বলেন সেটা করেন। কক্সবাজারকে তিনি এশিয়ার অন্যতম পর্যটনের তীর্থস্থান হিসেবে গড়তে চান। এ কারণেই কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গড়ন ও বিশ্বাস করে আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। আমিও তাঁর অনুসারী। তাঁর ইচ্ছে অনুসারে কক্সবাজারকে পরিকল্পিত ভাবে সাজানো হবে। এটি বাস্তবায়ন করতে গেয়ে একতা দরকার। সংবর্ধনায় সবার স্বত:স্ফূর্ত উপস্থিতি যে ভালবাসার বহি:প্রকাশ ঘটেছে, তা অব্যাহত থাকলে সাজানো কক্সবাজার গড়া সময়ের ব্যাপার মাত্র

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে আয়োজিত গণসংবর্ধনার জবাবে কউক চেয়ারম্যান ও ঈদগাঁও’র কৃতি সন্তান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ এসব কথা বলেছেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে ঈদগাঁও আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বৃহত্তর ঈদগাঁও’র ৬ ইউনিয়ন (ঈদগাঁও, জালালাবাদ, পোকখালী, ইসলামাবাদ, ইসলামপুর ও চৌফলদন্ডী) যৌথভাবে এ গণ সংবর্ধনার আয়োজন করে।

সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মাস্টার মোজাম্মেল হক ফরাজীর সভাপতিত্বে এবং জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জালালাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ ও জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবির হিমুর যৌথ সঞ্চালনায় লোকারণ্যে পরিণত হওয়া গণসংবর্ধণায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক সাংসদ ও সদ্য বিদায়ী কক্সবাজার জেলা পরিষদ প্রশাসক ও বর্তমান প্রশাসক প্রার্থী মোস্তাক আহমদ চৌধুরী। প্রধান বক্তা ছিলেন কক্সবাজার সদর আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দরিয়ানগরের ভূমিপুত্র, একুশে পদকপ্রাপ্ত জাতিসত্তার কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী কানিজ ফাতেমা মোস্তাক, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিএম রহিম উল্লাহ, রামু উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আবু তালেব, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল করিম মাদু, উপজেলা স্বেচ্চাসেবকলীগ সভাপতি এড. একরামুল হুদা, ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছৈয়দ আলম।

বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রাজীবুল হক চৌধুরী রিকো, ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা জাতীয় শ্রমিকলীগ আহবায়ক আমজাদ হোসেন ছোটন রাজা এবং ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক আবু হেনা বিশাদ।

এসময় বক্তারা বলেন, সরকার কক্সবাজরে নানা উন্নয়নযজ্ঞ চলমান রেখেছে। রেললাইন, বিদ্যুৎ প্রকল্প, স্টেডিয়ামসহ উন্নীত করা হচ্ছে সড়ক যোগাযোগ। সন্ত্রাস ও দূর্নীতি এড়িয়ে কউক চেয়ারম্যানকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে সহযোগিতা দিলে কক্সবাজারের সর্বত্র উন্নয়নের বিল্পব ঘটানো সম্ভব। কক্সবাজারের সার্বিক উন্নয়নের স্বার্থে আগামীতে আরো ১০ বছরের জন্য ফোরকান আহমদকে স্বপদে বহাল রাখতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান তারা।

উপস্থিত ছিলেন জেলা আ’লীগের উপদেষ্টা মমতাজ আহমদ (জাপান), কউক সদস্য ডা. সাইফুদ্দীন ফরাজী, প্রকৌশলী বদিউল আলম, এড. প্রতিভা দাশ, এড. আমজাদ হোসেন, জেলা আ’লীগ নেতা অধ্যাপক ফিরোজ আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামীলীগ নেতা মাস্টার নুরুল আজিম, ঈদগাহ্ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খুরশীদুল জন্নাত, আওয়ামীলীগ মনজুরুল হক চৌধুরী, শামিম শহিদ, ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক মো. খায়রুজ্জামান, ঈদগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহম্মদ রফিকুল ইসলাম, সদর আ’লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম আমির, সাংগঠনিক সম্পাদক লুৎফুর রহমান আজাদ, সদর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন পুতু, ইসলামাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান নুর ছিদ্দিক, আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এমইউপি, চৌফলদন্ডী ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াজ করিম বাবুল, আ’লীগ সভাপতি এহেছানুল হক, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মনির, ইসলামপুর চেয়ারম্যান আবুল কালাম, সাবেক চেয়ারম্যান মাস্টার আবদুল কাদের, সাবেক চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি মনজুর আলম, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান চৌধুরী, পোকখালী ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদ ও আ’লীগ সভাপতি মোজাহের আহমদ, ঈদগাঁও ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান সোহেল জাহান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক তারেক আজিজ, জালালাবাদ আ’লীগ সভাপতি সেলিম মোর্শেদ ফরাজী, সাধারণ সম্পাদক এম. মমতাজুল ইসলাম খান, আওয়ামীলীগ নেতা আজিজুল হক এবং ঈদগাঁও সাংগঠনক উপজেলা ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি রাশেদ উদ্দিন রাশেলসহ আওয়ামীলীগ সহযোগী সংগঠন সমুহের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন পেশাজীবি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং সাধারণ জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে নেচে মিছিলসহকারে সংবর্ধণায় যোগদেন।

এলাকার সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক নের্তৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথিকে ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

পল্টন থানার তিন মামলায় মির্জা আব্বাস ও আফরোজা আব্বাসের আগাম জামিন

It's only fair to share...32900মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী, ঢাকা থেকে : নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে ...

error: Content is protected !!