ঢাকা,শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

শপথ শেষে চকরিয়ায় ফিরে

জনতার ভালোবাসায় সিক্ত আবারো নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদি

চকরিয়া-পেকুয়া আসনের এমপির সঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রের সমন্বয়
রয়েছে, তাই আপনারা নিশ্চিত থাকুন উন্নয়ন নিয়ে বৈষম্য হবেনা
-এমপি সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক

এম জিয়াবুল হক, চকরিয়া ::
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয়বার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে শপথ গ্রহণ শেষে এলাকায় ফিরে জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন পুনরায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও কক্সবাজার জেলা ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদি।

গতকাল বৃহস্পতিবার ১৩ জুন বিকালে চকরিয়া পৌর বাসটার্মিনাল মাঠে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরণ করতে গণসংবর্ধনা সমাবেশের আয়োজন করেন চকরিয়া উপজেলা, মাতামুহুরী সাংগঠনিক থানা, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগ, সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও দলমত নির্বিশেষে জনসাধারণ।

এদিন বিকাল চারটায় চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী চকরিয়া পৌর বাসটার্মিনাল মাঠে পৌঁছালে একে একে দলীয় নেতাকর্মী ও উপস্থিত জনসাধারণ এবং কর্মী সমর্থক তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন।

চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সরওয়ার আলম এর সভাপতিত্বে বিশাল গণসংবর্ধনা সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন কক্সবাজার ১ ( চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অবঃ) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতিক।

আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট ফয়জুল কবির ও চকরিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শওকত হোসেন এর যৌথ সঞ্চালনায় সংবর্ধনা সমাবেশে বক্তব্য দেন সংবর্ধিত চকরিয়া উপজেলা পরিষদের পুনরায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদি।
এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, মাতামুহুরী সাংগঠনিক থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মহসিন বাবুল, ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মঈনুদ্দিন চৌধুরী, বিএমচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম জাহাঙ্গীর আলম, চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ত্রাণ সম্পাদক শফিউল আলম বাহার, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি বাবু তপন দাশ, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক এসএম আলমগীর হোছাইন, বদরখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরে হোছাইন আরিফ, আওয়ামী লীগ নেতা আবছার উদ্দিন মাহমুদ, অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিক, চকরিয়া পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফোরকানুল ইসলাম তিতু, প্যানেল মেয়র ২ মুজিবুল হক মুজিব, আওয়ামী লীগ নেতা পরিমল বড়ুয়া, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম শহীদ, চকরিয়া পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি হাসানগীর হোছাইন।

এছাড়াও সমাবেশে বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আমির হোসেন আমু, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের কোষাধ্যক্ষ আজিজুল হক, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন মিঠু প্রমুখ।

সংবর্ধনা সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন মাতামুহুরী সাংগঠনিক থানা আওয়ামী লীগ নেতা সোলতান মাহমুদ টিপু, শাহাব উদ্দিন শাকিল, ডুলাহাজারা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি তরুণ রাজনীতিবিদ কলিম উল্লাহ কলি, আওয়ামী লীগ নেতা ইকবাল দরবেশী, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেফায়েত সিকদার, মানবাধিকার সংগঠক সাংবাদিক আক্তার উদ্দিন রানা, কোনাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, চকরিয়া পৌরসভা ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আবছার বাদশা, চকরিয়া পৌরসভার নারী কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম, কাউন্সিলর ইফতেখারুল ইসলাম হানিফ, কাউন্সিলর এম নুরুস শফি, কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম, চকরিয়া পৌরসভা ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবু, মাতামুহুরী সাংগঠনিক থানা আওয়ামী লীগ নেতা সজিব মোস্তফা।
এছাড়াও গণ সংবর্ধনা সমাবেশে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী, জনপ্রতিনিধি ও সর্বস্থরের জনসাধারণ মিছিলে মিছিলে যোগদান করেন।

জনগণের ভালোবাসার জবাবে নবনির্বাচিত চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী বলেন, বিগত পাঁচ বছর দায়িত্ব পালনকালে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত সরকারি সবধরনের সেবা ইউনিয়ন পরিষদ এবং প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের মাধ্যমে জনগণের মাঝে পৌঁছে দিয়েছি। সরকারি বরাদ্দ নিশ্চিত করে চকরিয়া উপজেলার ১৮ ইউনিয়নের প্রতিটি জনপদে মানুষের কল্যাণে সামগ্রিক উন্নয়ন অগ্রগতি বাস্তবায়নে সহযোগিতা করেছি। আমি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সরকারি সম্পদ বা বরাদ্দের কোনধরনের হস্তক্ষেপ করিরি। আমি মনে করি, আমার জায়গায়, আমি শতভাগ সৎ থেকে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছি।

তিনি বলেন, চকরিয়াবাসি গত পাঁচ বছরে আমার নামে কোনধরনের দুর্নাম শুনেনি। এইধরনের কোন কাজ আমি চকরিয়া উপজেলা পরিষদে করিনি। পাঁচ বছর জনগণের পবিত্র আমানত আমি রক্ষা করেছি বলেই প্রিয় চকরিয়া উপজেলাবাসি নিরাপদ চকরিয়া গড়তে সেবক হিসেবে আমাকে আবারও বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছেন। আমি কথা দিচ্ছি, জীবনের বিনিময়ে হলেও চকরিয়া উপজেলাবাসির দেয়া এই প্রতিদান অক্ষরে অক্ষরে পালন করবো। তাই আগামীর সমৃদ্ধ চকরিয়া উপজেলা গড়তে দলমত নির্বিশেষে সকলের আমি সহযোগিতা চাই।

সমাবেশে প্রধান অতিথি এমপি সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক বলেছেন, আগামীতে চকরিয়া উপজেলা হবে দেশের একটি মডেল উপজেলা। আগেকার সময়ে জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে সমন্বয় ছিলনা, সেই সুযোগ নিয়ে অনেকে সরকারি সম্পদ বরাদ্দ লুন্ঠন করেছে। জনগণের অধিকার হরণ করা হয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে চকরিয়ার জনগণ ভালো মানুষ তথা নিরাপদ নেতৃত্বের পক্ষে সমুচিত গণরায় দিয়েছে।

তিনি বলেন, চকরিয়ায় এখন এমপির সঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যান পৌরসভার মেয়র, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সমন্বয় রয়েছে। তাই অতীত ভুলে গিয়ে জনসাধারণ নিশ্চিত থাকতে পারবেন আপনার এলাকার উন্নয়ন অগ্রগতি বাস্তবায়নে কোনধরনের বৈষম্য হবেনা। কথা দিচ্ছি, জনগণের কল্যাণে আমরা এক এবং অভিন্ন হয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ। ##

 

 

পাঠকের মতামত: