ঢাকা,শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

চকরিয়ায় লুটকরা মোবাইল, টাকা ও বন্দুক সহ ৪ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

মনির আহমদ, কক্সবাজার ::  চকরিয়া থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ ছিনতাইকারী কে গ্রেফতার করেছে। এসময় তাদের হেফাজত ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত দেশীয় তৈরি কাটা বন্দুক ,কার্তুজ , কিরিচ, ছুরি, রামদা, ছিনতাইকৃত মোবাইল সেট ও নগদ ১১০০ টাকা জব্দ করেছে। ১২ জুন’২৪ রাত দেড়টায় চকরিয়া থানার পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়নের ঈদমনি ০১নং ওয়ার্ডস্থ লাল ব্রীজ নামক স্থানে ছিনতাইয়ের এ ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ সুত্র জানায়, অদ্য ১২ জুন রাত অনুমান দেড়টায় চকরিয়া থানাধীন পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নের ঈদমনি লাল ব্রীজ নামক স্থানে অজ্ঞাত নামা কয়েকজন দুস্কৃতিকারীরা সিএনজি আটক করিয়া ছিনতাই করার চেষ্টাকালে মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের টহল টিম তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।

পুলিশের উপস্থিতি টের পাইয়া ছিনতাইকারীরা দ্রুত পালানোর চেষ্টাকালে টহল পুলিশ রাতভর অভিযান চালিয়ে পুর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নের নুরুল আলমের পুত্রআরাফাত হোসেন বাপ্পি (২০) ও ঈদমনির মৃত শরীফ উদ্দিনের পুত্র বদিউল আলম (২০), নুরুল কবিরের পুত্র কামরুল হাসান (১৮),ও ওবায়দুল হক এর পুত্র আবদুল বাছেদ (২১), সর্ব সাং- ঈদমনি, ০১নং ওয়ার্ড, ইউনিয়ন- পুর্ব বড় ভেওলা, থানা- চকরিয়া, জেলা- কক্সবাজারকে আটক করতঃ তাদের হেফাজত হইতে একটি এলজি বন্দুক, যাহা কাঠের বাট সহ লম্বা ১২ ইঞ্চি, একটি কার্তুজ, ০২ টি রাম দা, যাহার মধ্যে একটি লোহার হাতল লম্বা ২২ ইঞ্চি, অপরটি কাঠের হাতল সহ লম্বা ৩৬ ইঞ্চি,০১টি ষ্টীলের টিপ ছুরি, লম্বা ১২ ইঞ্চি, ০৯টি বিভিন্ন কোম্পানীর মোবাইল ফোন এবং ছিনতাইকৃত ১১০০টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

চকরিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী নাদিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ ব্যাপারে থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে। এবং

আসামিরাও বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে। প্রসঙ্গত: ঈদ উল আযহাকে সামনে রেখে পুলিশ ও আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপরতা বৃদ্ধি করেছে।

পাঠকের মতামত: